রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ০২:৪২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ভাঙ্গুড়ায় ৭ দিন ব্যাপি বই মেলা জমে উঠেছে উপজেলায় এমপি মন্ত্রীর সন্তান-স্বজনরা প্রার্থী হলে ব্যবস্থা উপজেলা নির্বাচনে মন্ত্রী–সংসদ সদস্যদের হস্তক্ষেপ বন্ধে কঠোর নির্দেশনা : ওবায়দুল কাদের স্বাধীনতা সংগ্রামের এক অবিস্মরণীয় দিন ১৮ এপ্রিল। হোসেন আলী ভারতে স্বাধীন বাংলার পতাকা উড়ান আজ ভাঙ্গুড়ায় দুগ্ধজাত ক্ষুদ্র শিল্পের সফল উদ্যোক্তা কলেজ ছাত্র অপু ঘোষ ভাঙ্গুড়ায় নতুন ইউএনও’র যোগদান- জ্ঞানের নিষ্প্রভ বাতিঘর কি আবার আলোকিত হবে ? বুয়েটকে জঙ্গিবাদের আখড়া বানানো যাবে না: পররাষ্ট্রমন্ত্রী ভাঙ্গুড়ায় জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে অনলাইন গরুর হাট ! মাসে কেনাবেচা ৬ কোটি টাকা ভাঙ্গুড়ায় জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে অনলাইন গরুর হাট ! মাসে কেনাবেচা ৬ কোটি টাকা ভাঙ্গুড়ায় জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে অনলাইন গরুর হাট ! মাসে কেনাবেচা ৬ কোটি টাকা

চাটমোহরে পানির নিচে ধান ও সবজি ক্ষেত

অনলাইন ডেস্ক:
  • আপডেটের সময় : সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ১৪২ সময় দর্শন

পাবনার চাটমোহরে গত কয়েকদিনের টানা বর্ষণে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় বোনা আমন ধান ও আগাম সবজি ক্ষেত পানির নিচে ডুবে গেছে। ফলে দ্বিতীয় দফায়ও স্বপ্নভঙ্গ হলো কৃষকের। মহামারি করোনার ক্ষতি পুষিয়ে উঠতে না উঠতেই টানা বর্ষণ ও বন্যার পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় কৃষকের মরার ওপর খাঁড়ার ঘা অবস্থা হয়েছে। সবজি ক্ষেত বিনষ্ট হওয়ায় বাজারেও সবজির সংকট দেখা দিয়েছে। চাটমোহর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাসুমবিল্লাহ ও মনিরুল ইসলাম, উপসহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা জানান, উপজেলায় ৭ হাজার ৪ শ’ হেক্টর জমিতে বোনা আমন ধান চাষ করা হয়েছিল। কিন্তু বন্যা ও প্রবল বর্ষণের কারণে ৩৩ হেক্টর জমির বীজতলা পানির নিচে ডুবে নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে এ বিষয়ে এলাকাবাসীর ধারণা ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ আরো বেশি হবে।

 

সবজি চাষীদের ক্ষতি পোষাতে ও মনোবল বাড়াতে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর কৃষকদের বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করে আসছে এবং আরো সহযোগিতা করবে বলে জানা গেছে। উপজেলার অপেক্ষাকৃত বিভিন্ন উঁচু এলাকায় লালশাক, পুইশাক, পালংশাক, ফুলকপি, মরিচ, লাউ, ডাটা, ঝিঙে, মুলা, বেগুনসহ বিভিন্ন শাকসবজি রোপণ করা হয়েছিল। কিন্তু পানি বৃদ্ধিতে জমিগুলো ডুবে যায়। ধূলিসাৎ হয় সবজি চাষীদের স্বপ্ন। এছাড়া টানা বৃষ্টি ও বন্যায় উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় উঁচু জমিতে পানি জমে থাকায় রোপা আমন ধান চাষ করতে পারেনি কৃষক।

 

চাটমোহরের বড়বেলাই, হাসুপুর, হোসেনপুর, বেলঘড়িয়া, বাঘলবাড়ি ও দরাপপুর গ্রামের ধান চাষি অনেকে জানান, বন্যার পানি নামার সাথে সাথে আবারো ঘুরে দাড়ানোর চেষ্টা করেছিলেন তারা। কিন্তু বন্যা ও বৃষ্টি তাদের পিছু না ছাড়ায় বারবার তাদের ক্ষতির মুখে পড়তে হচ্ছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
২০২০© এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ*
ডিজাইন - রায়তা-হোস্ট সহযোগিতায় : SmartiTHost
smartit-ddnnewsbd