বৃহস্পতিবার, ০৪ মার্চ ২০২১, ০৯:০২ পূর্বাহ্ন

বাড়িওয়ালা-ভাড়াটিয়ার আইনি অধিকার ও প্রতিকার

প্রতিবেদকের নাম :
  • আপডেটের সময় : শুক্রবার, ৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১
  • ১৬ সময় দর্শন

অনলাইন ডেস্ক: বাড়ি ভাড়া আইন, ১৯৯১ একটি বিশেষ আইন। বিশেষ আইন অন্য সব সাধারণ আইনের ওপর প্রাধান্য লাভ করে থাকে। এটিই আইনের বিধান। যদিও বাস্তব প্রেক্ষাপটে আমরা এই বিশেষ আইনের তোয়াক্কা না করেই ভাড়াটিয়ারা বিশেষত বাড়িওয়ালারা নিজেদের ইচ্ছেমতো এমন অনেক কিছুই করি যেটা আইন সিদ্ধ নয়। এমন কাজের জন্য বাড়িওয়ালা বা ভাড়াটিয়ারা আইনগতভাবে প্রতিকার পেতে সহকারী জজ আদালতে মামলা দায়ের করতে পারেন।

বাড়ি ভাড়া আইন অনুযায়ী একজন ভাড়াটিয়া বা বাড়িওয়ালারা আইনগত কতগুলো দায়িত্ব, অধিকার ও প্রতিকার রয়েছে। আইনগত সুরক্ষা পেতে বাড়ির মালিক ও ভাড়াটিয়ার মধ্যে বাড়ি ভাড়া নেওয়ার আগেই কতগুলো বিষয়ে ঝামেলা মিটিয়ে নিতে হয়। তবেই পরবর্তীতে আইনি সুরক্ষার ক্ষেত্রে কোনো ঝামেলা পোহাতে হবে না।
মালিক ও ভারাটিয়ার মধ্যে একটি চুক্তিনামা তৈরি করতে হবে। যেই চুক্তিনামায় মালিক ও ভাড়াটিয়ার মধ্যে বিস্তারিত সুযোগ-সুবিধা করণীয় বর্জনীয়সহ নানা বিষয়ের বিবরণাদি থাকবে। এই চুক্তিনামা ৩০০ টাকার নন জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে লিখিত হতে হবে। দরকার হলে চুক্তিনামাটি রেজিস্ট্রি করা যেতে পারে। সম্পত্তি হস্তান্তর আইনের ১০৭ ধারা মোতাবেক যদি রেজিস্ট্রি করা না হয় তবে সেটি এক বছরের জন্য করা হয়েছে বলে গণ্য হবে।
একজন ভারাটিয়া বাড়িওয়ালার কাছে জিম্মি নন। তার কতগুলো আইনগত অধিকার রয়েছে। বাড়িওয়ালা ইচ্ছে করলেই ভাড়াটিয়ার কাছ থেকে মাসিক ভাড়া ব্যতিত অন্য কোনো প্রিমিয়াম, সালামি, অগ্রিম জামানত গ্রহণ করতে পারবেন না। মাসিক ভাড়া ছাড়া যদি কোনো অগ্রিম জামানত গ্রহণ করেন তাহলে ১৪ (২) উপ-ধারা অনুযায়ী সহাকারী জজ আদালতে ভাড়াটিয়া মামলা দায়ের করতে পারেন।
এক্ষেত্রে বাড়ির মালিক ইচ্ছে করলেই ভাড়াটিয়াকে উচ্ছেদের মামলা করতে পারেন না। মালিক যদি বাড়ি ভাড়ার টাকা গ্রহণ করতে অস্বীকৃতি জানায়। তবে ভাড়াটিয়া মালিককে ডাক মানি অর্ডারের মাধ্যমে টাকা পাঠাবেন।
তবে বাড়িওয়ালারও বাড়ি ভাড়া আইনে কিছু অধিকার রয়েছে। যদি ভাড়াটিয়া প্রতিমাসে নিয়মিতভাবে ভাড়া পরিশোধ না করেন তবে সম্পত্তি হস্তান্তর আইনের ১০৬ এবং ১০৮ (গ) উপ-ধারা অনুযায়ী উচ্ছেদের নোটিশ দিয়ে ভাড়াটিয়ার বিরুদ্ধে মামলা করা যায়। যৌক্তিকতার নিরুপনে প্রতি দুই বছর পর পর মানসম্মতভাবে ভাড়া বাড়াতে পারেন।
এছাড়াও বাড়ির মালিকের অনুমোদন ব্যতিত যদি সাবলেট কিংবা বাড়ির গঠনগত কোনো বড় পরিবর্তন কিংবা পার্শ্ববর্তী বাড়ির দখলকারী কোনো ব্যক্তিবর্গকে যদি উৎপাত, উত্যক্ত বা বিরক্ত করে থাকলে ভাড়াটিয়ার বিরুদ্ধে আইনগ ব্যবস্থা নিতে পারেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
২০২০© এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ*
ডিজাইন - রায়তা-হোস্ট সহযোগিতায় : SmartiTHost
smartit-ddnnewsbd