রবিবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২১, ১০:৩৪ অপরাহ্ন

ধরিত্রী বাঁচাতে বৈশ্বিক জলবায়ু জোট চাই : প্রধানমন্ত্রী

প্রতিবেদকের নাম :
  • আপডেটের সময় : শুক্রবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ১৫ সময় দর্শন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, কার্বন নিঃসরণ হ্রাস করে জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব থেকে ভবিষ্যৎ প্রজন্ম ও ধরিত্রীকে বাঁচাতে শক্তিশালী বৈশ্বিক জলবায়ু জোটের জরুরি প্রয়োজন। শতাব্দীর মধ্যভাগের আগে বিশ্বব্যাপী কার্বন নিঃসরণ কার্যকরভাবে হ্রাস করে কার্বন ভারসাম্যতা আনায়নের দিকে এগিয়ে যেতে ইতিবাচক ও শক্তিশালী আন্তর্জাতিক জলবায়ু জোটের গুরুত্বের ওপর জোর দিতে চাই। বাসস। প্যারিস চুক্তির পঞ্চমবার্ষিকী উপলক্ষে ১.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস বিশ্ব গড়ার গতি ত্বরান্বিত করার লক্ষ্যে ‘থিম্পু অ্যামবিশন সামিট’ শীর্ষক ভার্চুয়াল শীর্ষ সম্মেলনে প্রচারিত প্রধানমন্ত্রীর প্রাক-রেকর্ডকৃত এক ভাষণে এ কথা বলা হয়। অন্যান্যের মধ্যে ভুটানের প্রধানমন্ত্রী ড. লোটে শেরিং, জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস এবং কপ-২৬ চেয়ার অলোক শর্মা এবং ইউএনএফসিসিসির নির্বাহী সম্পাদক প্যাট্রিশিয়া এসপিনোসা ইউএনএফসিসিসিতে এলডিসি গ্রুপের চেয়ার ভুটানের রাজকীয় সরকার আয়োজিত এ ভার্চুয়াল শীর্ষ সম্মেলনে ভাষণ দেন।

 

জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাবে কয়েক মিলিয়ন মানুষকে জলবায়ু উদ্বাস্তু করে তুলেছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে বাঁচাতে আপনাদের জরুরি ও সিদ্ধান্তমূলক পদক্ষেপের আহ্বান জানাচ্ছি। ইউএনএফসিসিসি আমাদের বৈশ্বিক এজেন্ডাকে এগিয়ে নিতে সবচেয়ে উপযুক্ত প্ল্যাটফরম হিসেবে রয়েছে। ’ এ প্রসঙ্গে শেখ হাসিনা বলেন, ‘কভিড-১৯ মহামারী আমাদের দেখিয়েছে যে, একটি মহামারী কত দ্রুত একটি বিপর্যয়কর বিশ্ব সংকটে পরিণত হতে পারে এবং এটি আমাদের শিখিয়েছে যে জোরালো সম্মিলিত উদ্যোগই বিশ্বব্যাপী সংকট মোকাবিলার একমাত্র উপায়। ’ প্রধানমন্ত্রী প্যারিস চুক্তি জলবায়ু অর্থ সংস্থানের জন্য উন্নত দেশগুলোর বাধ্যবাধকতা পুনঃনিশ্চিত করেছে বলে উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, ‘এমডিবিস, আইএফআইএসের রেয়াতি অর্থায়ন এবং কর মওকুফের মাধ্যমে জলবায়ু অর্থায়নে আরও জোরদার ব্যবস্থার জন্য এগিয়ে আসা উচিত এবং সবার জন্য প্রযুক্তির প্রবেশাধিকার নিশ্চিত করা উচিত। ’ টানা ষষ্ঠবার ফোর্বসের ক্ষমতাধর নারীদের তালিকায় শেখ হাসিনা : বিখ্যাত মার্কিন সাময়িকী ফোর্বস ২০২০ সালের বিশ্বের ক্ষমতাধর নারীদের তালিকা প্রকাশ করেছে।

 

১০০ জনের এই তালিকায় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৩৯তম স্থানে রয়েছেন। এর ফলে টানা ষষ্ঠবার তিনি ফোর্বসের প্রভাবশালী নারীর তালিকায় স্থান পেলেন। প্রধানমন্ত্রী সম্পর্কে ফোর্বস লিখেছে, শেখ হাসিনা ওয়াজেদ বাংলাদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশিদিন দায়িত্ব পালনকারী প্রধানমন্ত্রী। এবার তিনি চতুর্থ মেয়াদে দায়িত্ব পালন করছেন। ফোর্বস আরও লিখেছে, সর্বশেষ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ৩০০টি সংসদীয় আসনের মধ্যে ২৮৮টিতে জয়ী হওয়ার পর চতুর্থবার প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন। যা আবার তার টানা তৃতীয়বার প্রধানমন্ত্রী হওয়া। এতে আরও লেখা হয়েছে, চতুর্থবার প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালনকে শেষবার হিসেবে বিবেচনা করেন শেখ হাসিনা। এই মেয়াদে তিনি খাদ্য নিরাপত্তা, সবার জন্য শিক্ষা ও স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার পরিকল্পনায় মনোযোগ দিয়েছেন। বাংলাদেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য শেখ হাসিনা সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছেন বলেও উল্লেখ করেছে ফোর্বস।

 

ফোর্বস মঙ্গলবার এই তালিকা প্রকাশ করেছে। এতে ৩০টি দেশের বিভিন্ন বয়সী নারীদের নাম এসেছে। এদের মধ্যে রাষ্ট্র বা সরকারপ্রধান আছেন ১০ জন। আছেন বিভিন্ন কোম্পানির ৩৮ জন সিইও। বিনোদন খাতের পাঁচজনও স্থান পেয়েছেন তালিকায়। জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল আবারও তালিকার শীর্ষে রয়েছেন। এতে টানা দশমবার তালিকার শীর্ষস্থান দখল করলেন তিনি। তালিকার দ্বিতীয় স্থানে আবারও আছেন ইউরোপীয় কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রধান ক্রিস্টিন ল্যাগার্ড। তৃতীয় স্থানে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে নির্বাচিত কমলা হ্যারিস। এবারই তিনি প্রথম তালিকায় স্থান পেয়েছেন। চতুর্থ স্থানে আছেন ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ফন ডেয়ার লাইয়েন, পঞ্চম স্থানে মেলিন্ডা গেটস।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
২০২০© এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ*
ডিজাইন - রায়তা-হোস্ট সহযোগিতায় : SmartiTHost
smartit-ddnnewsbd