সোমবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২১, ১০:১৮ অপরাহ্ন

সানা খানের স্বামী কে এই মুফতি আনাস, কিভাবে পরিচয়?

অনলাইন ডেস্ক:
  • আপডেটের সময় : বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর, ২০২০
  • ২১ সময় দর্শন

সানা খান। বলিউডের ঝলমলে দুনিয়া ছেড়ে বেছে নিয়েছেন শান্তির পথ। ইসলামের বিধি-বিধান অনুযায়ী জীবনযাপনের জন্য সানা বেছে নিয়েছেন ত্যাগের জীবন। যে জীবনকে ধারণ করেছেন, সেখানে ঝলমলে দুনিয়ার জীবনযাপনের কোনো মূল্য নেই। তাইতো নিজেকে সেভাবেই গুছিয়ে নিয়েছেন তিনি। নিজের জীবনযাপনের জন্য বেছে নিয়েছেন জীবনসঙ্গী।

সানা খান এমন একজনকে নিজের সারা জীবনের সঙ্গী হিসেবে বেছে নিয়েছেন, যিনি একজন ধার্মিক মানুষ। ইসলামের শিক্ষায় শিক্ষিত হয়েছেন। পড়াশোনা করেছেন ইসলাম নিয়ে। জীবনযাপন করেন ইসলামী শরিয়াহ মোতাবেক। মাওলানা মুফতি আনাস ভারতের গুজরাটের বাসিন্দা।

ইসলামী জীবনধারণে অভ্যস্ত হয়ে যাওয়ার পর সানা খানকে বিয়ে করেন মুফতি আনাস। তবে সানা খান নিজের বিয়ে সম্পর্কে ইনস্টাগ্রামে একটি পোস্ট লিখেছেন, তাঁর জীবনে জড়ানো পুরুষটিকে ট্যাগ করেছেন, সেখান থেকেই জানা যাচ্ছে সানার স্বামীর নাম আনাস সাঈদ। আনাস সাঈদ একজন ইসলামী  চিন্তাবিদ। এ ছাড়া তিনি এখন গুজরাটের ব্যবসায়ী।

সানা খানের বিয়ের খবর শোনা গেল তো বটে। অনেকেই আগ্রহে আছেন, সানা খানের স্বামীর বিষয়ে। সে আগ্রহের উত্তরও অনেকটাই ওপরে দেওয়া হলো। এর মাঝে সবচেয়ে বড় প্রশ্নটা হলো, সানার সঙ্গে আনাসের পরিচয়টা হলো কিভাবে? তার আগে জানা দরকার, সানার প্রেমিক কে ছিলেন? সানার প্রেমিকের নাম ছিল মেলভিন লুইস। তাঁর সঙ্গে এক বছর আগে সম্পর্কের পর্বটা চুকে যায়। এবার আসি আসল কথায়, কিভাবে মুফতি আনাসের সঙ্গে পরিচয় হলো সানা খানের।

এরই মধ্যে সবাই জেনে গেছেন যে সানা খান প্রথম আলোচিত হন ‘বিগবস সিজন-৬’-এ এসে। কাহিনিটা সেখানেই। সানার সঙ্গে বিগবসের পরের সিজনের একজনের সঙ্গে পরিচয় ঘটে। সিজন-৭-এর প্রতিযোগী এজাজ খান হলেন সেই প্রতিযোগী, যিনি বলিউডের রক্ত চরিত্রা-২ ও আল্লাহকে বান্দে নামের দুটি সিনেমায় অভিনয় করেছেন। এজাজ খান ওই সিজনে আজব আজব সব কর্মকাণ্ড করে সালমান খানের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। যা-ই হোক, ওই প্রতিযোগীদের সম্মিলনেই পরিচয় ঘটে সানা ও এজাজের। এজাজ খানের পরিচিত ছিলেন মুফতি আনাস। এজাজ ও আনাস দুজনই ভারতের গুজরাটের হওয়ায় তাদের মধ্যে সম্পর্ক ছিল আগে থেকেই।

অভিনেতা এজাজই মুফতি আনাসের সঙ্গে সানা খানের পরিচয় করিয়ে দেন। এরপর আনাসের সঙ্গে সানার পৃথকভাবে কথা হতে থাকে। সানা খান বলছেন, তিনি আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্যই ভালোবেসে বিয়ে করেছেন। সে অনুযায়ী তাদের মধ্যে প্রণয় থেকে পরিণয়ের বিষয়টি ঘটে। ধারণা করা হচ্ছে, লুইসের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্নের পরের এক বছর সানা খানের জীবনে ঘটে যায় এসব পরিবর্তন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
২০২০© এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ*
ডিজাইন - রায়তা-হোস্ট সহযোগিতায় : SmartiTHost
smartit-ddnnewsbd