শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৯:২১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ভাঙ্গুড়ায় ইউএনও’র ভাষা চর্চা ক্লাবে শিক্ষার্থীদের উপচে পড়া ভিড়! ভাঙ্গুড়ায় গ্রাহকের সঞ্চয়ের টাকা নিয়ে উধাও এনজিও সরকারি ভাঙ্গুড়া ইউনিয়ন স্কুলে ভর্তি অনিয়ম ! ভুগছেন শিক্ষার্থী-অভিভাবক! অধ্যক্ষকে শোকজ ডোনাল্ড লুর হাই প্রোফাইল সফর- অংশগ্রহণমূলক আগামী সংসদ নির্বাচন দেখতে চায় যুক্তরাষ্ট্র দেশের উন্নয়নে দিশেহারা হয়ে বিএনপি আবোল তাবল বকছে,খালেদা জিয়ার কথায় দেশ চলবে এটা বিএনপির দু:স্বপ্ন – এমপি মকবুল ভাঙ্গুড়ায় তীব্র শীতে এক কৃষকের মৃত্যু আজ ১০০ মহাসড়ক উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী প্রার্থিতা জমা নেয়ার পর হঠাৎ নির্বাচন বন্ধ করে দিলেন প্রধান শিক্ষক বিএনপির সংসদ সদস্যরা জমা দিলেন পদত্যাগপত্র ভাঙ্গুড়ায় মেয়াদোত্তীর্ণ কোভিড-১৯ টিকা পুশ নিয়ে জটিলতা! অধিদপ্তরের মেয়াদ বৃদ্ধি

মূলত তিন কারণে পদত্যাগ করেছি : সোহেল রানা

অনলাইন ডেস্ক:
  • আপডেটের সময় : মঙ্গলবার, ১৩ অক্টোবর, ২০২০
  • ২৫৮ সময় দর্শন

জাতীয় পার্টি থেকে পদত্যাগ করেছেন দলটির প্রেসিডিয়াম সদস্য চিত্র তারকা মাসুদ পারভেজ। যিনি সোহেল রানা হিসেবেই পরিচিত চলচ্চিত্র জগতে। ১০ অক্টোবর জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জি এম কাদের বরাবর রেজিস্টার্ড ডাকযোগে তিনি পদত্যাগপত্র পাঠিয়েছেন। চলচ্চিত্রের এই উজ্জ্বল তারকা রাজনীতি থেকে নিজেকে কেন গুটিয়ে নিলেন? এই প্রশ্নের উত্তর জানতেই সোহেল রানার সঙ্গে কথা বলেছেন মাহতাব হোসেন

কেমন আছেন? 
ভালোই আছি। আল্লাহ তায়ালা ভালোই রেখেছেন।

আকস্মিকভাবেই রাজনীতি ছেড়ে দিলেন যে?
রাজনীতি কোথায় ছাড়লাম, আমি তো এখনো রাজনীতির  মধ্যেই আছি, তুমিও রাজনীতির বাইরে নও। আমরা কেউই রাজনীতির বাইরে নই। একটা কফি কিনতে যাও, একটা আইসক্রিম কিনতে যাওয়া এসবও রাজনীতির অংশ। হ্যাঁ, তুমি বলতে পারো আমি পার্টি ছাড়লাম কেন, এটার কারণ বলতে গেলে অনেক সময় লাগবে। তোমার লিখতেও কষ্ট হবে।

সমস্যা নেই, আপনি বলেন, আমি লিখে নেবো ঠিক… 
না, আজ থাক বরঞ্চ আমার অন্যদিন বিস্তারিত বলবো। আজ মূল কারণ বলি, অল্প কথায়, ঠিক আছে?

হ্যাঁ, প্রধান কারণ বললেই হবে।
আমার জাতীয় পার্টি ছাড়ার কারণ মূলত তিনটি। এক নম্বর হলো- এরশাদ সাহেব মারা যাওয়ার পরে দলে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয়েছে। তৃণমূল কর্মীদের মতামতকে গ্রাহ্যই করা হচ্ছে না। তাদের মনের ইচ্ছা-আকাঙ্ক্ষা কিংবা বক্তব্য শোনা হচ্ছে না, শীর্ষ পর্যায়ে নিজেরাই যা ইচ্ছে সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলছে। এটা মানতে পারছি না। তাদের মতামত নিয়েই দলকে সাজানো দরকার।

দু’নম্বর কারণ হলো- প্রত্যেক পার্টির অনেক কর্মী আছে যারা ডেডিকেটেড, পার্টির জন্য নিবেদিত প্রাণ। জাতীয় পার্টিরও এমন অনেক কর্মী আছে। এইসব কর্মীকে মূল্যায়ণ করা উচিৎ অথচ তাদের অবমূল্যায়ণ করা হচ্ছে। এরশাদ সাহেব চলে যাওয়ার সাথে সাথে এদের নেগ্লেক্ট করা আমার ভালো লাগেনি।

তিন নম্বর হলো, আমাদের পার্টিটা আসলে কী? এই প্রশ্নের উত্তর পাই না, জাতীয় পার্টি জোটের নাকি বিরোধীদল, ক্ল্যারিফাই যদি না থাকে তাহলে সেটা কেমন দল হলো? মূলত এই তিন কারণেই আমি দল ছেড়েছি।

কেউ কেউ বলছে ঢাকা ১৮ আসনে আপনি মনোনয়ন চেয়েছিলেন, পাননি- এ কারণেই নাকি পদত্যাগ? 
এটা খুব হাস্যকর কথা। কিছু গণমাধ্যমে এমন কোথা কোত্থেকে আসলো কে জানে। আসলে এই ইলেকশন নিয়ে আমার মোটেও মাথাব্যাথা ছিল না, যার কারণে এই ইলেকশন কবে হবে না হবে সেটাও জানি না। কারণ গত দেড় বছর ধরে প্রেসিডিয়াম সদস্যদের নিয়ে কোনো মিটিং হয় না, তাই স্বাভাবিকভাবেই জানা সম্ভব না আসলে আওয়ামী লীগ এককভাবে মনোনয়ন দেবে নাকি জোটবদ্ধভাবে দেবে, নাকি প্রত্যেকেই আলাদাভাবে দেবে। এসব নিয়ে একদমই আমার আগ্রহ নেই।

সামনের পরিকল্পনা কী? নতুন কোনো দলে যোগ দেবেন নাকি? 
শোনো, পরী থাকে যুবক বয়সে, এখন তো আমাদের বয়স শেষ, এখন পরী আশবে কোত্থেকে (হাসি) আসলে পরিকল্পনা বলতে অনেকেই তো ইনভাইট করে বলে, আসেন ইউ ক্যান জয়েন উইথ আস। কিন্তু বিষয়টা তো এতো সহজ নয়। এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নেইনি। পরিকল্পনাতেও নেই কিছু। কিছু সময় যাক, ভেবে দেখা যাক।

আচ্ছা, সেটাই ভালো হয়তো। ভালো থাকবেন… 
তুমিও ভালো থেকো.

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর
২০২০© এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ*
ডিজাইন - রায়তা-হোস্ট সহযোগিতায় : SmartiTHost
smartit-ddnnewsbd