বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ১০:৩১ পূর্বাহ্ন

ভাঙ্গুড়ায় ইউপি নির্বাচনী ক্যাম্পে হামলা ও ভাংচুরের অভিযোগ: আহত ৪

প্রতিবেদকের নাম :
  • আপডেটের সময় : রবিবার, ১১ অক্টোবর, ২০২০
  • ৮২০ সময় দর্শন

বিশেষ প্রতিনিধি: পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলার মন্ডতোষ ও ভাঙ্গুড়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থীদের নির্বাচনী ক্যাম্পে ভাংচুর ও কর্মীদের উপর হামলার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় অন্তত সাতজন আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে গুরতর আহত সুরুজ আলী(২৮),মকবুল হোসেন(২২),ইমন হোসেন(২১) ও নয়ন মিয়া(২০)ভাঙ্গুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছেন। আহতরা সবাই মন্ডুতোষ ইউনিয়নে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদ প্রার্থী নূর ইসলাম মিন্টুর কর্মী-সমর্থক।

জানাগেছে, শনিবার(১০অক্টোবর) রাত সাড়ে নয়টার দিকে নির্বাচনী প্রচারণার উদ্দেশ্যে মন্ডতোষ ইউনিয়নে ঘোড়া মার্কার স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী নূর ইসলাম মিন্টু কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে খালপাট এলাকায় পৌঁছিলে নৌকা মার্কার চেয়ারম্যান প্রার্থী ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আফসার আলীর ভাই গফুর আলির নেতৃত্বে ১০/১২ জন যুবক লাঠিসোটা নিয়ে তাদের উপর হামলা চালায়। এতে নূর ইসলাম মিন্টুসহ তার চারজন কর্মীসহ অন্তত সাতজন আহত হয়।
এ ব্যাপারে নৌকার প্রার্থী আফসার আলী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী নূর ইসলাম মিন্টু ভাড়াটিয়া গুন্ডাবাহিনী নিয়ে নির্বাচনী প্রচার কাজ চালাচ্ছেন বলে একে অপরের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করেছেন।

অপর ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার (১০অক্টোবর) রাতে ভাঙ্গুড়া ইউনিয়নের চরভাঙ্গুড়া গ্রামে। এখানেও স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী ঘোড়া মার্কার গোলাম ফারুক টুকুনের নির্বাচনী অফিসে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করা হয়েছে। গোলাম ফারুক টুকুন বলেন,নির্বাচনে পরাজয়ের কথা ভেবে আমার কর্মীদেরকে হুমকি-ধমকি দিয়ে প্রচার-প্রচারণায় বাধা দিচ্ছে নৌকার চেয়ারম্যান প্রার্থী বেলাল হোসেন খান। এ ব্যাপরে টুকুন থানায় এবং রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন বলেও তিনি জানান।
নৌকার প্রার্থী বেলাল হোসেন খান ঘটনাটি অনাকাংখিত উল্লেখ করে বলেন,ওখানে আমার নির্বাচনী ক্যাম্পও ভাংচুর করা হয়েছে। কে বা কারা ঘটনাটি ঘটিয়ে ফায়দা নিতে চায়। আমরা সেটা হতে দেব না।


ভাঙ্গুড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মুহম্মদ আনোয়ার হোসেন রবিবার দুটি বিষয়েই পৃথক অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন বিষয় দুটি তদন্ত চলছে।
রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাচন অফিসার রোকসানা নাসরিন বলেন,রবিবার(১১অক্টোবর)দুপুরে উভয় পক্ষই পরস্পরের বিরুদ্ধে হামলা ও ভাংচুরের অভিযোগ করেছেন। বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।
উল্লেখ্য,আগামী ২০ অক্টোবর ওই দুটি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
২০২০© এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ*
ডিজাইন - রায়তা-হোস্ট সহযোগিতায় : SmartiTHost
smartit-ddnnewsbd