রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ০৩:২৪ পূর্বাহ্ন

রাতে আদালত বসিয়ে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটকে হাইকোর্টে তলব

অনলাইন ডেস্ক:
  • আপডেটের সময় : শুক্রবার, ৯ অক্টোবর, ২০২০
  • ২১৬ সময় দর্শন

থানায় দায়ের করা ধর্ষণের মামলায় চার শিশুকে যশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানোর ঘটনায় ব্যাখ্যা দিতে বরিশালের বাকেরগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এনায়েত উল্লাহকে তলব করেছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে তাকে আগামী ১১ অক্টোবর সশরীরে হাইকোর্টে ব্যাখ্যা দিতে হাজির হতে বলা হয়েছে। পাশাপাশি যশোরের জেলা প্রশাসককে যশোর পুলেরহাট শিশু উন্নয়ন কেন্দ্র থেকে ওই ৪ শিশুকে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত মাইক্রোবাসে করে আজ রাতের মধ্যে তাদের অভিভাবকদের কাছে পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা গ্রহণ করতে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। এছাড়াও বাকেরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে ওই ৪ শিশুর অভিভাবকসহ আগামী ১১ অক্টোবর হাইকোর্টে সশরীরে উপস্থিত হওয়ার আদেশ দিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার দিবাগত (৮ অক্টোবর) রাতে আদালত বসিয়ে এই আদেশ দেন হাইকোর্ট। ধর্ষণের মামলায় চার শিশুকে গ্রেফতার করে শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানো নিয়ে একটি টেলিভিশনে প্রচারিত সংবাদ আমলে নিয়ে বৃহস্পতিবার (৮ অক্টোবর) রাত ৯টায় বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মহি উদ্দিন শামীমের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চ স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে এ আদেশ দেন।

 

আদালত তার আদেশে বরিশালের শিশু আদালতের বিচারককে ওই ৪ শিশুর জামিন নিষ্পত্তির বিষয়েও আদেশ প্রদান করেছেন। এদিকে, বরিশাল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালককে আগামী ১১ অক্টোবরের মধ্যে ভিকটিম শিশুর ধর্ষণ সংক্রান্ত মেডিকেল রিপোর্ট প্রেরণ করার নির্দেশ দিয়েছেন। হাইকোর্ট বৃহস্পতিবার (৮ অক্টোবর) দিবাগত রাতের মধ্যে শিশুদের তাদের মা-বাবার কাছে পৌঁছে দিয়ে সুপ্রিম কোর্টের বিশেষ কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাইফুর রহমানকে অবগত করতে নির্দেশ দিয়েছেন। পরে সুপ্রিম কোর্টের বিশেষ কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাইফুর রহমান জানান, হাইকোর্টের সব নির্দেশনা বরিশালের শিশু আদালতের বিচারক, জেলা প্রশাসক, পরিচালক, বরিশাল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ, চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, সংশ্লিষ্ট সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, বাকেরগঞ্জের ওসিকে টেলিফোনে অবগত করা হয়েছে। এদিকে হাইকোর্টের আদেশ অবগত হওয়ার পর বরিশালের শিশু আদালতের বিচারক ওই ৪ শিশুর জামিন মঞ্জুর করেছেন বলেও জানিয়েছেন সাইফুর রহমান। প্রসঙ্গত, বাকেরগঞ্জে গত ৪ অক্টোবর ৬ বছরের এক প্রতিবেশী কন্যাশিশুর সঙ্গে চার ছেলে শিশু বাগানে বসে খেলছিল।

 

এরপর মেয়ে শিশুটিকে তার পরিবার অসুস্থ অবস্থায় বরিশাল মেডিক্যালে নিয়ে যায়। এরপর সেই চার ছেলে শিশুকে গত ৬ অক্টোবর আসামি করে বাকেরগঞ্জ থানায় কন্যাশিশুর বাবা ধর্ষণের মামলা করে। ওই মামলায় চার শিশুকে গ্রেফতার করে গত ৭ অক্টোবর আদালতে হাজির করা হলে তাদের শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানোর নির্দেশ দেন বরিশালের বাকেরগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এনায়েত উল্লাহ। এদিকে শিশুদের স্বজনরা অভিযোগ করেছেন, তাদের শিশুরা ধর্ষক নয়। শত্রুতার জের ধরে তাদের শিশুদের ফাঁসানো হয়েছে। এরপর এ নিয়ে একটি বেসরকারি টেলিভিশনে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। সেই প্রতিবেদন আমলে নিয়ে হাইকোর্ট এই আদেশ দিলেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর
২০২০© এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ*
ডিজাইন - রায়তা-হোস্ট সহযোগিতায় : SmartiTHost
smartit-ddnnewsbd