রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ০১:০৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ভাঙ্গুড়ায় ৭ দিন ব্যাপি বই মেলা জমে উঠেছে উপজেলায় এমপি মন্ত্রীর সন্তান-স্বজনরা প্রার্থী হলে ব্যবস্থা উপজেলা নির্বাচনে মন্ত্রী–সংসদ সদস্যদের হস্তক্ষেপ বন্ধে কঠোর নির্দেশনা : ওবায়দুল কাদের স্বাধীনতা সংগ্রামের এক অবিস্মরণীয় দিন ১৮ এপ্রিল। হোসেন আলী ভারতে স্বাধীন বাংলার পতাকা উড়ান আজ ভাঙ্গুড়ায় দুগ্ধজাত ক্ষুদ্র শিল্পের সফল উদ্যোক্তা কলেজ ছাত্র অপু ঘোষ ভাঙ্গুড়ায় নতুন ইউএনও’র যোগদান- জ্ঞানের নিষ্প্রভ বাতিঘর কি আবার আলোকিত হবে ? বুয়েটকে জঙ্গিবাদের আখড়া বানানো যাবে না: পররাষ্ট্রমন্ত্রী ভাঙ্গুড়ায় জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে অনলাইন গরুর হাট ! মাসে কেনাবেচা ৬ কোটি টাকা ভাঙ্গুড়ায় জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে অনলাইন গরুর হাট ! মাসে কেনাবেচা ৬ কোটি টাকা ভাঙ্গুড়ায় জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে অনলাইন গরুর হাট ! মাসে কেনাবেচা ৬ কোটি টাকা

প্রথমবার মাস্ক পরে জনসমক্ষে এলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প

প্রতিবেদকের নাম :
  • আপডেটের সময় : রবিবার, ১২ জুলাই, ২০২০
  • ২৮০ সময় দর্শন

ডিডিএন ডেস্ক : প্রথমবার মাস্ক পরে জনসমক্ষে এলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প (Donald Trump)। ওয়াশিংটনের বাইরে এক সেনা হাসপাতালে শনিবার তাঁকে দেখা গেল কালো মাস্ক মুখে। তিনি বললেন, ”মাস্ক পরে ভালই লাগছে।” করোনার (Coronavirus) কামড়ে সবচেয়ে বেশি জর্জরিত এই মুহূর্তে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। রোজ নতুন করে সংক্রমণ, মৃত্যুর হার নিজেই নিজের রেকর্ড ভেঙে চলেছে। তবে দেশের এহেন পরিস্থিতিতেও নিজেকে গৃহবন্দি করে রাখা ছাড়া বিশেষ কোনও সতর্কতা নেননি মার্কিন প্রেসিডেন্ট। বিশেষত মাস্ক পরতে তাঁর ভারী আপত্তি ছিল। তবে এবার তাঁর সেই আপত্তি বোধহয় ঘুচল।

শনিবার ওয়াল্টার রিড মিলিটারি হাসপাতালে আহতদের দেখতে গিয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সেখান থেকে বেরনোর সময়ে চিত্রগ্রাহকদের ক্যামেরায় ধরা পড়ে, তাঁর মুখে কালো মাস্ক। যদিও সেই ছবি ভালভাবে ক্যামেরাবন্দি করার আগেই প্রেসিডেন্ট সেখান থেকে সরে যান। এরপর মাস্কের প্রয়োজনীয়তা নিয়ে নিজেই বক্তব্য রাখেন ট্রাম্প। বলেন, ”আমি মাস্ক পরার বিরোধী ছিলাম না। তবে তা কোথায়, কীভাবে পরতে হবে, তাও ভাবার বিষয়। হাসপাতালে গিয়ে অসুস্থদের সঙ্গে কথা বলব। নানা ধরনের সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা থাকে হাসপাতাল থেকে। সেখানে তো মাস্ক পরাটাই বুদ্ধিমানের কাজ।”

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ফি দিন ৬৫ হাজারেরও বেশি মানুষের দেহে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ছে। মৃত্যুও বাড়ছে হু হু করে। ট্রাম্প প্রশাসন অবশ্য দাবি করছে, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণেই আছে। সামনে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। ট্রাম্পের যুযুধান প্রতিপক্ষ ডেমোক্র্যাট শিবিরের জো বিডেন। প্রেসিডেন্টের গদি এবার কোন দিকে হেলবে, তার অনেকটাই নির্ভর করছে করোনা পরিস্থিতির উপর।

রাজনৈতিক একাধিক বিষয়ে দুই শিবিরের দ্বন্দ্ব স্বাভাবিক। তবে উল্লেখযোগ্যভাবে করোনা এড়াতে মাস্ক পরা নিয়েও দ্বিধাবিভক্ত ডেমোক্র্যাট-রিপাবলিকানরা। একপক্ষ মনে করছে, মাস্কে মুখ ঢেকে বেরনোর নির্দেশিকা জারি করা ব্যক্তি স্বাধীনতার পরিপন্থী। আবার অন্য পক্ষের মতে, আগে রোগ সংক্রমণ রুখে জীবন বাঁচানো, তারপর রাজনীতি। তাই বিশেষজ্ঞদের নির্দেশ মেনে মাস্ক পরাই উচিত। তবে প্রেসিডেন্ট এদিন সংক্ষিপ্ত কথায় বুঝিয়ে দিলেন, তিনি নিজে প্রয়োজন বুঝলে তবেই মাস্ক পরবেন। নচেৎ অন্যের সুপরামর্শ মেনে চলার পাত্র তিনি মোটেই নন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
২০২০© এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ*
ডিজাইন - রায়তা-হোস্ট সহযোগিতায় : SmartiTHost
smartit-ddnnewsbd