বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ০২:৩৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
মেয়াদোত্তীর্ণ পৌরসভায় যথাসময়ে নির্বাচন হবে: ইসি ভাঙ্গুড়ায় দুই হত্যা মামলার আসামী আ’লীগ নেতাকে গ্রেফতারের দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ আটঘরিয়ায় মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড ১৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত উল্লাপাড়ায় পুকুর থেকে ভাসমান লাশ উদ্ধার আটঘরিয়ায় জাতীয় স্যানিটেশন মাস ও বিশ্ব হাত ধোয়া দিবস উপলেক্ষ প্রচার প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত ভাঙ্গুড়ায় যুবদলের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষ্যে আনন্দ র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত রাস্তায় বসে জন্মদিনের কেক কাটলেন মাহিয়া মাহি চলনবিলে বিলুপ্তিরর পথে  ভাত শোলা উল্লাপাড়া মডেল থানার হস্তক্ষেপে ৩ দিন পর খেঁয়া পারাপার স্বাভাবিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে চূড়ান্ত হচ্ছে ২ দিন ছুটি

ভাঙ্গুড়া থানায় গৃহবধু হত্যার মামলা রুজুর দাবিতে মানববন্ধন

প্রতিবেদকের নাম :
  • আপডেটের সময় : রবিবার, ২৮ জুন, ২০২০
  • ২১ সময় দর্শন

ভাঙ্গুড়া প্রতিনিধি  :
পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলায় এক গৃহবধুর অপমৃত্যুর ঘটনায় ইউডি মামলার পরিবর্তে হত্যা মামলা রুজুর দাবিতে আজ শনিবার একটি মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। ভাঙ্গুড়া বাজার রেল চত্তরে দুপুরে এই মানববন্ধনে উপজেলার মন্ডুতোষ ইউনিয়নের অধিবাসীরা অংশ নেন। এতে বক্তব্য রাখেন মন্ডুতোষ গ্রামের নুর ইসলাম মিন্টু,আবু তারেক,মৃত গৃহবধুর খালা শিল্পী খাতুন,মামা সাহেব আলী,আওয়ামীলীগ নেতা আজাদ খান প্রমুখ। তারা বলেন,গত ২২জুন রান্না ঘরের ডাবের সাথে গলায় দড়ি পেচানো অবস্থায মন্ডুতোষ গ্রামের গৃহবধু মিনা খাতুন (৩৫) এর লাশ উদ্ধার করা হয় তা আত্মহত্যার ঘটনা নয়। কিন্তু পুলিশ এটাকে অপমৃত্যু মামলা হিসাবে রেকর্ড করেছে। ইউনিয়নবাসীর অভিযোগ মিনা খাতুন (৩৫) কে তার স্বামী আব্দুল খালেক তার ভাইদের সহায়তায় হত্যা করে এবং পরে ডাবের সাথে ঝুলিয়ে রেখেছিল। গ্রামবাসীরা জানান, মিনার তিন নাবালক পুত্র রয়েছে। মায়ের মৃত্যুর পর তারা অসহায় হয়ে পড়েছে।
জানাগেছে, মিনা খাতুনকে বিয়ের পর তার স্বামী আব্দুল খালেক শ্বশুরের সমস্ত সম্পত্তি নিজের নামে লিখে চায়। মিনা একমাত্র সন্তান হওয়ায় পিতা মন্তাজ আলী তার ১২ বিঘা জমি মেয়ের নামে দানপত্র রেজিস্ট্রি করে দেন। কিন্তু মিনার স্বামী ওই জমি আবার তার নামে লিখে দিতে বলে। এতে মিনা রাজি না হওয়ায় প্রায়ই তাকে নির্যাতন করতো। পরে আব্দুল খালেক দ্বিতীয় বিয়ে করে তাকে নিয়ে ঢাকায় চলে যান এবং সেখানে একটি গার্মেন্টসে চাকরি করেন। এতে দু:খ পেয়ে মিনার বাবাও মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলে। বক্তারা বলেন, ঘটনার আগের দিন রাতে আব্দুল খালেক বাড়ি আসেন এবং ভাইদের সহায়তায় মিনার উপর নির্যাতন চালায়। এতে সে মারা গেলে পরে গলায় দড়ি পেচিয়ে ঘরের ডাবের সাথে ঝুলিয়ে রেখে গা ঢাকা দেয়।
মানববন্ধন থেকে এই ঘটনা আত্মহত্যার পরিবর্তে থানায় হত্যা মামলা রুজু করে অপরাধীদের গ্রেফতারের দাবি জানানো হয়।

মন্ডুতোষ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ বলেন,মিনা খাতুনকে হত্যা করা হয়েছে বলে গ্রামবাসী আমার নিকটও অভিযোগ করেছে।
ভাঙ্গুড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) মো:নাজমুল হক বলেন,প্রাথমিক তদন্তে এটি আত্মহত্যা বলে মনে হযেছে। তবে লাশ পোস্ট মর্টেম করা হয়েছে। রিপোর্ট পাওয়ার পর হত্যার প্রমাণ মিললে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
২০২০© এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ*
ডিজাইন - রায়তা-হোস্ট সহযোগিতায় : SmartiTHost
smartit-ddnnewsbd